রবীন্দ্র জাদেজাকে একহাত নিলেন ক্ষুব্ধ হার্দিক পান্ডিয়া!

0
28
রবীন্দ্র জাদেজাকে একহাত নিলেন ক্ষুব্ধ হার্দিক পান্ডিয়া!পপুলার২৪নিউজ ডেস্ক:

চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে পাকিস্তানের পাহাড়প্রমাণ রান তাড়া করতে নেমে ভারতের ব্যাটিং হতশ্রী রূপ ধারণ করে। একমাত্র পেস বোলিং অলরাউন্ডার হিসেবে খ্যাত হার্দিক পান্ডিয়াই আলো জ্বালান ভারতের অন্ধকারাচ্ছন্ন ড্রেসিং রুমে।

রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, মহেন্দ্র সিংহ ধোনির মতো ব্যাটসম্যানদের আসা যাওয়ার মিছিলে ব্যতিক্রম ছিলেন হার্দিক। কিন্তু পান্ডিয়ার ভাগ্য খারাপ বলতে হবে। ৭৬ করে রান আউট হয়ে ফিরতে হয় তাকে। ভাগ্যের সাহায্য পেলে সেঞ্চুরিও হাঁকাতে পারতেন তিনি।পান্ডিয়ার এই রানআউটের পেছনে দায়ী হিসেবে যদি কাউকে দাঁড় করাতে হয়, তিনি হবেন আরেক অলরাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজা! জাদেজার অসহযোগিতার জন্যই বিধ্বংসী ব্যাটিং করতে থাকা পান্ডিয়াকে রান আউট হতে হয়।  জাদেজা বল ঠেলে নিজে তো ক্রিজ ছাড়লেনই না, সেই সঙ্গে নন স্ট্রাইক এন্ড থেকে ডেকে আনলেন পান্ডিয়াকে। তার সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে শতরান মাঠে রেখে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হল ভারতের তরুণ অলরাউন্ডারকে।

জাদেজার এমন আচরণে স্বভাবতই ক্ষুব্ধ পান্ডিয়া। প্রচণ্ড রাগে ব্যাট ছুড়ে দেন! জাদেজার সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। ধারাভাষ্যকাররা জাদেজাকেই আসামীর কাঠগড়ায় দাঁড় করান। ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা বলতে থাকেন, জাদেজা নিজেকে বলিদান দিয়ে বাঁচাতে পারতেন পান্ডিয়াকেই। কারণ, ভারতের এই তরুণ অলরাউন্ডার তখন ম্যাচটা অনেকটাই ঘুরিয়ে ফেলেছেন। পাকিস্তানের বোলারদের পাল্টা মার দিচ্ছেন। নিজের আউট নিয়ে অসন্তুষ্ট পান্ডিয়া খেলার শেষে টুইটারে নিজের প্রতিক্রিয়া জানান। একটি জনপ্রিয় প্রবাদের আশ্রয় নিয়ে নিজের অভিব্যক্তি ব্যক্ত করেন পান্ডিয়া , “হামে তো আপনো নে লুটা, গ্যায়রো মে কাহা দম থা। ”

বিতর্কিত এই টুইট অনেক কিছুই বলে দিচ্ছে। একে তো পাকিস্তানের কাছে হেরে ভারত সমালোচকদের নখ-দাঁত বের করার সুযোগ করে দিয়েছে। নিন্দুকরা তির ছুড়ছেন কোহলির দিকেও। টসে জিতে কেন ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিলেন ভারত অধিনায়ক, এমন প্রশ্নও উঠেছে। এর পরে পান্ডিয়ার ক্ষোভ প্রকাশ এই বিতর্ক আরও উসকে দিতে পারে। তবে শেষ পর্যন্ত সবদিক ভেবেই হয়তো ভারতের এই অলরাউন্ডার টুইট ডিলিট করে দেন।