ধর্মীয় পরিচয় বদলে বিয়ে করতে এসে বরসহ আটক ১০

0
12
 জেলা প্রতিনিধি,পপুলার২৪নিউজ:

যশোরের কেশবপুরে পরিচয় গোপন করে বিয়ে করতে এসে ৯ বরযাত্রীসহ বরকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার বুড়িহাটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, কেশবপুরের বুড়িহাটি গ্রামের আবুল হোসেনের কলেজ পড়ুয়া মেয়ে শিউলি খাতুনের সঙ্গে সুমন নামের এক যুবকের মোবাইলে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

সুমন খুলনার লবনচোরা থানার ছাছিবুনিয়া এলাকার রুহুল আমীন শেখের বাসা ভাড়া নিয়ে তরকারির ব্যবসা করেন।

এক পর্যায়ে শিউলির পরিবার থেকে রুহুল আমীন শেখের ওই বাসায় যায়। তারপর শুক্রবার বিয়ের আয়োজন করা হয়।

বিকালে বিয়ের কাবিনের সময় জনৈক ব্যক্তি মোবাইল ফোনে কনের পিতাকে জানান বর সুমন সনাতন ধর্মাবলম্বী।

এ সময় বর সুমনের কাছে থাকা ভোটার আইডি কার্ডে দেখা যায়, তিনি খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার আটলিয়া ইউনিয়নের নরনিয়া গ্রামের গণেশ চন্দ্র তরফদারের ছেলে সুমন চন্দ্র তরফদার।

এ সময় গ্রামবাসী তাদের ঘরের মধ্যে আটকে রেখে থানায় খবর দেয়। সন্ধ্যায় থানার উপ-পরিদর্শক তারিকুল ইসলাম বরসহ বরযাত্রীদের আটক করে থানায় নিয়ে আসেন।

আটককৃতরা হলেন কথিত বর সুমন তরফদার, তার ভাড়া বাসার মালিক খুলনার লবনচোরা থানার ছাছিবুনিয়া গ্রামের রুহুল আমীন শেখ, তার স্ত্রী শাহনাজ পারভীন, শ্বশুর পিরোজপুরের স্বরূপকাটি থানার কামারকাঠি গ্রামের আব্দুর রহমান, শ্বাশুড়ি রহিমা বেগম, শ্যালকের স্ত্রী আসমা বেগম, রুনা খাতুন, রুবিনা আক্তার রূপা, জামিয়া আক্তার জুঁই ও মিলিয়া খাতুন মিম।

কেশবপুর থানার ওসি এস এম আনোয়ার হোসেন বলেন, মেয়ের পক্ষ থেকে সংবাদ পেয়ে তাদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।