দোয়ারায় ১০ মিনিটে ১০ হাজার তালের বীজ রোপণ

0
58

পপুলার২৪নিউজ নুর উদ্দিন, ছাতক (সুনামগঞ্জ): দোয়ারাবাজারে ছাত্র-তরুণ এবং বয়োজ্যেষ্ঠরা মিলে ১০ মিনিটে ১০ হাজার তালের বীজ রোপণ করেন। যেন তালের বীজ রোপণের উৎসব। এর আগে শিক্ষক ও শিক্ষার্থী ও অভিভাবক মিলে ১০ হাজার তালগাছের বীজ সংগ্রহ করেন। কোন কোন শিক্ষার্থী ও অভিভাবক গত কয়েকদিন ব্যাপি নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকের কাছে বীজ সরবরাহ করেছেন, কেউ বা আনুষ্ঠানিকভাবে বপনের সময় মঙ্গলবার স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের হাতে বীজ তুলে দিলেন। মঙ্গলবার সকাল ১১ টা থেকে ১১ টা ১০ মিনিট পর্যন্ত ১০মিনিটে ১০ হাজার তালের বীজ রোপণ করলেন এলাকার ছাত্র-তরুণ এবং বয়োজ্যেষ্ঠরা।
যৌথভাবে এই উৎসবের উদ্বোধন করলেন তিন বীরপ্রতীক। দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ইদ্রিছ আলী বীরপ্রতীক, আব্দুল হালিম বীরপ্রতীক ও আব্দুল মজিদ বীরপ্রতীক। এসময় উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা প্রশান্ত কুমার বিশ্বাস, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আমিরুল হক, সুরমা ইউপি চেয়ারম্যান মামুন খন্দকার প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন হেলাল-খসরু উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ফারুক আহমদ ইউনিয়ন পরিষদের কাছে ৭০০ তালগাছের বীজ তুলে দেন। লিয়াকতগঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ দিলেন ১২’শ তালের বীজ, মাঠগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ৯০০ বীজ তুলে দেন। এর আগে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা নিজ উদ্যোগে বীজ সংগ্রহ করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের কাছে জমা দেন।
লিয়াকতগঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী নওফেল বললো, আমাদের বিদ্যালয়ের স্যার’রা সকলকে বলেছেন বজ্রপাতে স্কুলে যাওয়ার সময় শিক্ষার্থীরা মারা যাচ্ছে, হাওরে কাজ করার সময় কৃষক, মাছ ধরার সময় জেলেরা মারা যাচ্ছে, আমরা এই কঠিন দুর্যোগ মোকাবেলা করতে চাই, যেখানে তাল গাছ বেশি থাকে, সেখানে বজ্রপাত কম হয়, এজন্য আমাদের প্রধানমন্ত্রীও বলেছেন তাল গাছ রোপণ করতে, স্যারদের এসব কথা শুনে আমাদের বাড়ি এবং আশ পাশের বাড়ি থেকে ১০০ তালের বীজ এনে বিদ্যালয়ে জমা দিয়েছি। এভাবে অন্য শিক্ষার্থীরাও যে যতগুলো সম্ভব বীজ সরবরাহ করেছে। আজ আমরা সকলে মিলে একসঙ্গে এই বীজ রোপণ করেছি।
এভাবে তালগাছে বজ্রপাত ঠেকায় এই বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য এবং শিক্ষকরা এলাকায় প্রচার দেওয়ায় যাদের তাল গাছ আছে, তারা বীজ সরবরাহ করেছেন আবার কেউ কেউ কিনেও বীজ দিয়েছেন।
লক্ষীপুর ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে বীজ রোপণের মাধ্যমে এই উৎসবের উদ্বোধন করা হয় এবং ১০ মিনিট ব্যাপি ইউনিয়নের ১১ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১ টি স্কুল এ- কলেজ, ১ টি দাখীল মাদ্রাসা ও ১ টি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকরা মিলে ১০ হাজার তালের বীজ রোপণ করেন। একসঙ্গে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চত্বর এবং এলাকার সকল সড়কের পাশে তালের বীজ রোপণ করা হয়।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আমিরুল হক বললেন, বজ্রপাতের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগে যাতে কারো মৃত্যু না হয়। এই লক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক আমরা এই আয়োজন করেছি। তবে স্থানীয় লোকজনের আন্তরিকতা ও সরকারি সহায়তা ছাড়া তালের যখন চারা হবে, তখন সেটি রক্ষা করা কঠিন হবে।